বরিশাল জেলার সংবাদ

হিজলার শীর্ষ সন্ত্রাসী কালু আটক

হিজলা প্রতিধি : হিজলার অপরাধ জগতের আতংক, যত অঘটনের ঘটক শীর্ষ সন্ত্রাসী কালুকে পুলিশ আটকের পর ছাড়িয়ে নিয়েছেন উপজেলার চেযারম্যান বেলায়েত ঢালি । ৮ আগস্ট বিকাল ৩টা ৩০ মিনিটের সময় উপজেলার কাউরিয়া বন্দর থেকে তাকে আটক করেছে মুলাদী সার্কেলের পুলিশ। সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আনিসুল করিম জানান, তাকে একটি বিষয়ে জিজ্ঞেসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। কালাম ওরফে কালুকে আটকের ঘটনায় এলাকায় স্বস্তি ফিরে এসেছে। কালুকে আটকের পর অন্যান্য সহযোগিরা গা ঢাকা দিয়েছে।
সকল অঘটনের ঘটক কালু ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা হিজলায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছে। ফলে তাদের কোন অঘটনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কিংবা আইনের আশ্রয় নিতে সাহস পায়না কেউ। হিজলাবাসী নিরবে সহ্য করে যাচ্ছে কালু বাহিনীর অত্যাচার। কিনা করতে পারে কালুরা ? চুরি, ডাকাতি, লুন্ঠন, ধর্ষন, মাদকের একাধিক মামলায় জেলের ঘানি টেনেছেন দীর্ঘ সময়। আন্তঃ জেলা অপরাধ জগতের কিং সম্রাট কালু। হিজলার বাহিরে রয়েছে তার অগনিত শিশ্য সামন্ত। কন্ট্রাক্টে সব কিছুই করতে পারে কালু। আইন কানুনের কোন তোয়াক্কা করে না কালু বাহিনী। থানা কিংবা জেল হাজত এটা যেন তার শশুরালয়। জামাই আদরে থাকেন জেল হাজতে এমন বক্তব্য তার নিজের।
সূত্র জানিয়েছে দেশে বিভিন্ন থানায় কালুর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা থাকলেও জামিন নিয়ে প্রকাশ্যে চালাচ্ছে তার অপরাধ কর্ম। মাদক ব্যবসা, নারী ব্যবসা, জুয়ার আসর, ফিটিং, চাঁদাবাজিই যেন তাদের পেশা এবং আয়ের উৎস্য। এ যাবত কালের সবচেয়ে বড় মাদক চালান সহ ’১৮ সালে হিজলা গ্রেফতার হয়ে আলোচনায় আসে কালু ওরফে ইয়াবা কালু। কিছু দিন পুলিশ পাহারায় শশুরালয় জামাই আদরে থেকে এলাকায় এসে ক্ষতিটা পুশিয়ে নেওয়ার জন্য পুনরায় বেপরোয়া মাদক ব্যবসা চালায় কালু। রাতারাতি কারি কারি টাকা কামিয়ে নেয় কালু বাহিনী। একটি সূত্র জানিয়েছে, উপজেলা চেয়ারম্যা বেলায়েত ঢালির শেল্টারে দিন দিন বেপরোয়া হচ্ছেন কালু ও তার বাহিনী।আর তািই আটকের পরপরই বেলায়েত ঢালি তাকে ছাড়িয়ে নেয়।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button