প্রধান সংবাদবরিশাল জেলার সংবাদ

শিশু ধর্ষণ মামলায় আসামীর ফাঁসি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বরিশালে আট বছরের শিশুকে অপহরণের পর ধর্ষণ করে হত্যা ও তার মরদেহ গুমের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় আসামী আবুল কালাম আজাদ ওরফে কালুকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আবু শামীম আজাদ আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষনা করেন। দন্ডপ্রাপ্ত আবুল কালাম কালু নগরীর এয়ারর্পোট থানাধীন কাশিপুর গনপাড়া এলাকার মৃত ওয়াহাব খানের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১১ মার্চ পূর্ব গণপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী সীমা আক্তার প্রতিদিনের মত বিদ্যালয়ে যায়। বিদ্যালয়ের শৌচাগার বন্ধ থাকায় সে বিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী আসামী কালুর বাড়িতে শৌচাগারে যায়। এসময় কালু ঐ শিশুকে অপরহণ করে ধর্ষণ করে। এরপরে হত্যা করে লাশ বস্তাবন্দি করে একই এলাকার হালিম মাস্টারের বাড়ির গোরস্থানে ফেলে রাখে। ঘটনার দুই দিন পর ১৩ মার্চ ঐ গোরস্থান থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় নিহতের মা মাহামুদা বেগম বাদী হয়ে আসামীর নাম উল্লেখ করে এয়ারপোর্ট থানায় মামলা দায়ের করেন। ২০১৮ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর এয়ারপোর্ট থানার তৎকালীন তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতে চার্জশীট প্রদান করেন। আদালত ১০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এই রায় প্রদান করেন।

আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর ফয়জুল হক ফয়েজ জানান, এটি একটি যুগান্তকারী রায়। আট বছরের শিশু সীমাকে ধর্ষণের অপরাধে মৃত্যুদন্ড, অপহরণের ঘটনায় যাবজ্জীবন এবং লাশ গুমের ঘটনায় ৭ বছরের কারাদন্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়াও সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে আসামীর সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে দেড় লক্ষ টাকা ভিকটিমের পরিবারকে দেয়ার নির্দেশ দেন আদালত।

উন্নয়ন সংস্থা আভাষের আইনজীবী মোখলেছুর রহমান বাচ্চু জানান, বাদীর পক্ষ হয়ে আমরা এই আইনী সহায়তা করেছি। আমরা এই রায়ে সন্তুষ্ট।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button