বরিশাল জেলার সংবাদ

হত্যা চেষ্টা মামলায় বানারীপাড়ার প্যানেল মেয়র জেলহাজতে

মো. সুজন মোল্লা, বানারীপাড়া : আদালতের রেকর্ড সহকারীকে হত্যা প্রচেষ্টা মামলায় বরিশালের বানারীপাড়ার ভাতিজাসহ পৌরসভার প্যানেল মেয়র এসএম আকবরের জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন আদালত।

২৮ ফেব্রুয়ারী রোববার সকালে বরিশাল অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে প্যানেল মেয়র এসএম আকবর ও তার ভাতিজা উপজেলা পরিষদের এমএলএসএস বিপ্লব সরদার, ফায়জুল হক ও শাহিন সরদার জামিনের প্রার্থণা করলে বরিশাল অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক আমিনুল ইসলাম, এস এম আকবর ও বিপ্লব সরদারের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠান।

অপর দু’ আসামী ফায়জুল হক ও শাহিন সরদারের জামিন মঞ্জুর করা হয়। উল্লেখ্য আসামীরা উচ্চ আদালত থেকে ৬ সপ্তাহের অন্তবর্তীকালীন জামিনে ছিলেন। নিম্ম আদালত থেকে তারা স্থায়ী জামিন প্রার্থণা করেছিলেন।

মামলা সূত্রে জানাগেছে ১০ জানুয়ারি রবিবার বিকেল ৫ টার দিকে বরিশাল যুগ্ম-জেলা জজ ১ম আদালতের রেকর্ড সহকারী আক্তারুজ্জামান ডলার তার কর্মস্থল বরিশাল আদালত হতে বানারীপাড়ার উদ্দেশ্যে আসার পথে পৌর শহরের ৫ নং ওয়ার্ডের কুন্দিহার বায়তুল আমান সড়কের ব্রিজের সামনে সন্ধ্যা ৬ টার দিকে পৌছা মাত্র আসামীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দেশীয় দাঁ, লোহার রড ও লাঠি সোটা নিয়ে তার পথরোধ করে। এসময় বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে তর্ক-বিতর্ক করার এক পর্যায়ে তাকে এলোপাথাড়ি ভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। প্যানেল মেয়র এস এম আকবর তার হাতে থাকা দাঁ দিয়ে তার মাথা লক্ষ করে কোপ দিলে তার মাথা কেটে যায় বলেও বাদী তার এজাহারে উল্লেখ করেন। এছাড়াও মামলায় উল্লেখ করা হয় আহতের পকেট থেকে নগদ ৫ হাজার ৫ শত টাকা জোর পূর্বব ভাবে নিয়ে যায়। ১ ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন যার মূল্য ৭০ হাজার টাকা, একটি আইফোন যাহার মূল্য ৭০ হাজার টাকা ও ১০ হাজার টাকা মূল্যের একটি ঘড়িও নিয়ে যায়।

এ সময় রেকর্ড সহকারী ডলারের ডাকচিৎকারে স্বাক্ষীসহ আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে উল্লেখিত আসামীরা বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকী দিয়ে ঢাকা-মেট্টো-গ-১৭৬৩০১ নম্বরের একটি প্রাইভেট কার যোগে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় ডলারকে প্রথমে বানারীপাড়া ও পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পরে এসএম আকবর ও তার ভাতিজাদের সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে তাদের বিচারের দাবীতে বানারীপাড়া ছাত্রবন্ধন ফোরাম পৌর শহরে পোষ্টার ও ব্যানার সাঁটায়। আক্তারুজ্জামান ডলারের স্ত্রী মৌমিতা আলম বন্যা (৩০) বাদী হয়ে ১১ জানুয়ারি বানারীপাড়া থানায় হত্যা প্রচেষ্টা মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামীরা হলেন পৌর মেয়র এসএম আকবর তার ভাতিজা মো. ফজলুল হক সরদার, মো. শাহিন সরদার ও বিপ্লব সরদার এছাড়াও আরও ৩/৪ জনকে ওই মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়।

২০ জানুয়ারী প্যানেল মেয়র এসএম আকবরসহ মামলার অপর আসামীরা হাইকোর্ট থেকে ৬ সপ্তাহের অন্তবর্তীকালীন জামিন নেন। জামিন নিয়ে এলাকায় ফিরে ২৬ জানুয়ারী বিকালে আসামীরা ডলারের বাড়িতে গিয়ে ও পথের মধ্যে সাক্ষীদের পেয়ে ৭দিনের মধ্যে মামলা তুলে না নিলে হাত-পায়ের রগ কেটে ফেলাসহ প্রাণনাশের হুমকি দেয় এবং লোকজন দিয়ে তার বিরুদ্ধে সাঁটানো পোষ্টার ও ব্যাঁনার ছিড়ে ফেলা হয়।

ফলে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আক্তারুজ্জামান ডলার বানারীপাড়া থানায় ২৭ জানুয়ারী রাতে সাধারণ ডায়েরী করেন। গত ১৪ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত বানারীপাড়া পৌরসভা নির্বাচনে ১ ভোটের ব্যবধানে এসএম আকবর পুনরায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

ওই নির্বাচন প্রত্যাখান করে তার প্রতিদ্বন্ধি প্রার্থী পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান জেলা প্রশাসক ও জেলা রির্টার্নি কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ নিয়ে নির্বাচনী ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানাগেছে।

 

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button