প্রধান সংবাদ

বিমানের টিকিটের জন্য বরিশালে হাহাকার

স্টাফ রিপোর্টার : হঠাৎ করে রাজধানীর সাথে সড়ক ও নৌ যোগাযোগ বন্ধ করার পর আকাশ পথে বিমানের টিকেট নিয়ে হাহাকার পরে গেছে। পাশাপাশি বরিশাল-ঢাকা আকাশপথে যাত্রীভাড়া কয়েকগুন বেড়ে গেছে।

অথচ গত পনের দিন ধরে এ সেক্টরে যাত্রীর অভাবে সব এয়ারলাইন্সের দুঃশ্চিন্তার শেষ ছিলনা। এমনকি ৫Ñ১০ জন যাত্রী নিয়েও বরিশাল সহ দেশের অনেক অভ্যন্তরীন সেক্টরে ফ্লাইট চলাচল করেছে।

যাত্রীর অভাবে সরকারী এয়ারলাইন্সটি ইতোমধ্যে রবি, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার বরিশাল সেক্টরে ১টি করে ফ্লাইট বন্ধও করে দিয়েছে।

কিন্তু সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সাথে সারা দেশের নৌ-যোগাযোগ বন্ধের ঘোষনার সাথে সাথেই বেসরকারী দুটি এয়ারলাইন্স টিকেট বিক্রি বন্ধ করে দেয়।

বুধবার সকাল থেকে পুনরায় টিকেট বিক্রি শুরু হলেও ৩ হাজার ৪শ টাকার টিকেট এক লাফে দ্বিগুন হয়ে যায়। এমনকি ঘন্টা খানেকের মধ্যেই বুধবার সকাল ও বিকেলে ঢাকা-বরিশালÑঢাকা আকাশপথে সরকারী বেসরকারী ৫টি ফ্লাইটের সব টিকেট বিক্রি শেষ হয়েছে।

পরে বেসরকারী দুটি এয়ারলাইন্স বুধবার ৬৭ এ্যরোনটিক্যাল মাইলের বরিশাল সেক্টরে ৯ হাজার টাকায়ও বেশ কয়েকটি টিকেট বিক্রি করেছে।

অথচ করোনা মহামারী শুরুর আগে থাইল্যান্ডের একটি বেসরকারী এয়ারলাইন্স ২ হাজার ১০৪ মাইলের ঢাকাÑব্যাংকক-ঢাকা রুটে যাত্রী পরিবহন করেছে সাড়ে ১২ হাজার টাকায়। বেসরকারী দুটি এয়ারলাইন্সে ৩০ জুন পর্যন্ত বেশীরভাগ টিকেট বিক্রি শেষ হয়ে গেছে বুধবার সকালের মধ্যেই।

সময় যত গড়াবে চাহিদা তত বাড়বে, আর তারই সাথে বাড়বে যাত্রী ভাড়াও। এটাই অনুমোদিত বৈধ নিয়ম বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেসরকারী এক এয়ালাইন্সের একজন কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button