বরিশাল জেলার সংবাদ

করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নিয়ে ভোগান্তি

স্টাফ রিপোর্টার : বরিশালে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের হার গত ৭ দিনে দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। শনাক্ত হওয়ার রোগীর অর্ধেকেরও বেশি বরিশাল নগরীর বাসিন্দা। পাশাপাশি বিভাগের অন্যান্য জেলাতেও বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা।

হঠাৎ করে করোনা রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় নমুনা পরীক্ষার ফলাফল এক সপ্তাহেও না পাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বরিশালে একটি মাত্র পিসিআর ল্যাব থাকায় সংগৃহিত নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করার কারনে ফলাফল পেতে দেরি হচ্ছে বলে দাবি সংশ্লিষ্টদের।

বরিশাল চেম্বর অব কমার্স ইন্ডাষ্ট্রিজের সহ-সভাপতি অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম ঝান্ডা অভিযোগ করেন, তিনি ও তার স্ত্রী তাহমিনা চৌধুরী গত ২৩ জুন বরিশাল সদর হাসপাতালে করোনার নমুনা পরীক্ষা দেন। সোমবার পর্যন্ত পরীক্ষার ফলাফল পাননি। সদর হাসপাতালে একাধিকবার যোগাযোগ করেও এর কোন সদুত্তর পাননি।

আমিনুল ইসলাম ঝান্ডার মতো আরও অনেকে একই অভিযোগ করেছেন। যেকারনে সোমবার সদর হাসপাতাল ঘুরে দেখা গেছে, অনেকেই রিপোর্ট না পেয়ে হাসপাতাল কম্পাউন্ডে অবস্থান করছেন।

সদর হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসাইন বলেন, এ হাসপাতালে নমুনা সংগ্রহের ৩ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দেয়ার নিয়ম রয়েছে। কিছু রোগীর ক্ষেত্রে কেন দেরী হচ্ছে তা তিনি খোঁজ খবর নিয়ে দেখবেন।

সদর হাসপাতালের তত্ত্ববধায়ক জেলা সিভিল সার্জন ডা. মনোয়ার হোসেন বলেন, শের ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাসপাতালে চলমান বরিশালের একমাত্র পিসিআর ল্যাবটিতে প্রতিদিন ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা সম্ভব।

করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় নগরীর সদর হাসপাতালসহ জেলার অন্যান্য উপজেলা থেকে সংগৃহিত নমুনার কিছু সংখ্যক ঢাকায় পাঠানো হয়। এতে রিপোর্ট পেতে দেরি হতে পারে। নমুনা দেয়ার কতদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে হবে জানতে চাইলে সিভিল সার্জন বলেন, ‘আমরা এখন আর নিয়মের মধ্যে নেই’।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button