প্রধান সংবাদবরিশাল জেলার সংবাদ

প্রথম দিন নতুন বই পেলো একদল শিক্ষার্থী

আহসান হাবিব : চলমান করোনা সংকটের মধ্যে বরিশালে বছরের প্রথম দিন সংক্ষিপ্তভাবে বই উৎসব উদ্বোধন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক এস.এম অজিয়র রহমান গতকাল শুক্রবার নগরীর সিষ্টার ডে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন। এরই মধ্যে দিয়ে বরিশালে সর্বপ্রথম বই বিতরণ কার্যক্রমের শুভ সূচনা করা হলো।

স্বল্প পরিসরের এ অনুষ্ঠানে দীর্ঘদিন পরে বিদ্যালয়ে আসতে পেরে খুশী শিক্ষার্থীরা। তৃতীয় শ্রেণীর শিক্ষার্থী রাফিজা ইশরাত বলেন, ‘‘নতুন বই পেয়ে অনেক খুশি হয়েছি। এছাড়া অনেক দিন পর বান্ধবীদের সঙ্গে দেখা হয়ে মনটা ভালো হয়ে গেছে’।

জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা এবং সরকারের দায়িত্বশীল পদক্ষেপের কারণে মহামারি পরিস্থিতিতেও বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিতে পেরেছেন তারা।

বই বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম তালুকদার। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) প্রশান্ত কুমার দাস, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আবদুল লতিফ মজুমদার, বরিশাল সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান মধু প্রমুখ।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় নগরীর কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। সীমিত আয়োজনে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেন অধ্যক্ষ প্রফেসর খোন্দকার অলিউল ইসলাম।

দীর্ঘ প্রায় সাড়ে ৯ মাস পর করোনার কারণে বন্ধ স্কুলের আঙ্গনায় পা রেখে আনন্দে উদ্বেলিত হয় শিশুরা। বছরের প্রথম দিন নতুন বই হাতে পেয়ে বেজায় খুশি তারা। বছরের প্রথম দিন থেকেই নতুন বই পড়া শুরু করার কথা জানায় শিশুরা।

অভিভাবকরা জানান, শিশুরা স্কুলে যাওয়ার জন্য উদগ্রীব। বই নিতে হলেও স্কুলে এসে খুশি শিশুরা। বছরের প্রথম দিন বই পাওয়ায় শিশুরা প্রথম দিন থেকেই আগ্রহ নিয়ে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করবে বলে আশা করেন অভিভাবকরা।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ মজুমদার বলেন, জেলায় ১ হাজার ৫শ’ ৯৪ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২ লাখ ৩২ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। তাদের জন্য ১৩ লাখ নতুন বই এসেছে। আগামী ২ দিনের মধ্যে শতভাগ শিশুর হাতে বই তুলে দেয়ার কথা বলেন তিনি।

এদিকে জেলায় ৭শ’ ৯৩টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১ লাখ ৯৪ হাজার ৫শ’ ৩৪জন শিক্ষার্থীর জন্য নতুন বইয়ের চাহিদা ২৮ লাখ ১৯ হাজার ১শ’ ৫০টি। এর মধ্যে গতকাল পর্যন্ত ৯ লাখ ২১ হাজার ৮শ’ ৪৩টি নতুন বই এসে পৌঁছেছে। যা মোট চাহিদার ৩২.৭০ ভাগ। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ে শতভাগ শিক্ষার্থীর হাতে বই তুলে দেয়ার কথা জানান সংশ্লিষ্টরা। ###

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button