রাজনীতির সংবাদ

নবীন আলেমদেরকে আগামীর নেতৃত্বে প্রস্তুতি নিতে হবে : মুফতি ফয়জুল করিম

সাকিল খান : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ’র সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ মো: ফয়জুল করিম বলেছেন, আপনারা যে শিক্ষা অর্জন করেছেন সে শিক্ষার ভিত্তি স্থাপন করেছিলেন আমাদের নবী হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ)। তিনি এ শিক্ষার মাধ্যমেই ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রকে পরিবর্তন করেছিলেন। সুতরাং এখনও যদি আমরা এ শিক্ষার যথাযথভাবে মূল্যায়ন করতে পারি তাহলে বর্তমানেও ব্যক্তি, সমাজ ও রাষ্ট্রের চূড়ান্ত পরিবর্তন সম্ভব।

দারুল উলুম দেওবন্দ কেন প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল? দারুল উলুম দেওবন্দ শুধুমাত্র একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানই নয় বরং একটি ইতিহাস। এ উপমহাদেশে ইংরেজদের দখলদারীত্ব, মুসলমানদের ঈমান-আমল, তাহযিব- তামাদ্দুনকে রক্ষা করা ও মাতৃভূমিকে ইংরেজদের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য একদল ঈমানী দক্ষ বাহিনী তৈরি করাই ছিল দারুল উলুম দেওবন্দ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য।

মুফতি ফয়জুল করিম সরকারকে হুশিয়ার করে বলেন, আপনি কওমি স্বীকৃতি নিয়ে তামাশা বন্ধ করুন। অতি শীঘ্রই কওমী সনদের বাস্তবায়নের জন্য যা যা করা দরকার সেটা বাস্তবায়ন করুন। অন্যথায় এদেশের অর্ধ কোটি কওমী মাদরাসার শিক্ষক- শিক্ষার্থীরা এর বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে ।

আজ ১৬ ই মার্চ  মঙ্গলবার বিকাল ৩ টায় বরিশাল প্রেসক্লাবে আয়োজিত ” উম্মাহর সংকট উত্তরণে নবীন আলেমদের করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভা ও নবীন আলেমদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্যে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় দাওয়াহ ও অফিস সম্পাদক এইচ এম সাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, কওমী শিক্ষার্থীদের শুধু সনদের স্বীকৃতি দিয়েই সরকারের দায় শেষ করতে পারে না। শিক্ষার্থীদের সনদের স্বীকৃতির যথাযথ বাস্তবায়ন করতে হবে। কওমী শিক্ষার্থীদের পক্ষে সরকারের প্রতি ইশা ছাত্র আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির যে ৭ দফা দাবি পেশ করা হয়েছে সে দাবিগুলো অতিসত্বর মেনে নিতে হবে। সর্বোপরি কওমি মাদরাসার স্বকীয়তা বজায় রেখে কওমী শিক্ষার্থীদের মেধা কে সার্বজনীন ও দেশের অগ্রগতির অন্যতমক মূল উপাদান হিসেবে গড়ে তুলতে প্রয়োজনীয় সকল উদ্যোগ রাষ্ট্রকে গ্রহণ করতে হবে।

ইশা ছাত্র আন্দোলন বরিশাল মহানগর সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ জাহিদুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় আলোচনা সভা ও নবীন আলেম সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ মেহমান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বরিশাল মহানগর সহ-সভাপতি মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মাদ নাছির আহমাদ কাওছার, মাওলানা লুৎফর রহমান, সেক্রেটারী অধ্যাপক মুহাম্মাদ জাকারিয়া হামীদি, জাতীয় শিক্ষক ফোরাম বরিশাল মাহানগর সহ-সভাপতি মাওলানা আবু বকর সিদ্দিক ত্বহা, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন বরিশাল মহানগর সভাপতি মাওলানা আমানউল্লাহ আমান।

জামিয়া ইসলামিয়া হোসাইনিয়া মাদ্রাসার নায়েবে মুহতামিম মাওলানা আব্দুল কাদের কাসেমী, শাইখুল হাদিস মাওঃমোজ্জাম্মেল হোসাইন খান, ফয়জুল উলুম ধর্মাদী মাদ্রাসার ছদরে মুহতামিম মাওঃ হোসাইন আহমাদ,কুরআন শিক্ষা বোর্ড বরিশাল মহানগর শাখার সদস্য সচিব মাওঃআবু আব্দুল্লাহ মাহমুদী। বিশেষ বক্তা হিসাবে উপস্তিতি ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বরিশাল মহানগর শাখার ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক মাওলা আজিজুল হক প্রমূখ ।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button