জাতীয় সংবাদ

গণমাধ্যমকর্মী আইন পাস হলে সাংবাদিকদের মর্যাদা বাড়বে

মে দিবসের আলোচনাসভায় বক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক : নবম ওয়েজ বোর্ড বাস্তবায়ন এবং গণমাধ্যমকর্মী আইন পাস হলে সাংবাদিকদের মর্যাদা বাড়বে বলে আলোচকরা মত দিয়েছেন। আলোচকরা আরো বলেন, করোনাকালে সরকারি বিজ্ঞাপন বন্ধ হয়নি, তার পরেও মালিক পক্ষ সংবাদকর্মীদের ছাঁটাই, বেতন কর্তন, ঈদ বোনাস থেকে বঞ্চিত করছে। এ ধরনের অপতৎপরতা থেকে মালিক পক্ষকে সরে আসতে হবে। নয়তো এই পেশায় মেধাবীরা আসবে না, তাতে করে স্বাধীন গণমাধ্যম একসময় হুমকির মুখে পড়বে।

মে দিবসের ভার্চুয়াল আলোচনাসভায় বক্তারা এ কথা বলেন। বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়ন (জেইউবি) শনিবার (১ মে) দুপুরে ভার্চুয়াল আলোচনাসভার আয়োজন করে। সভার শুরুতেই করোনায় সংক্রমিত হয়ে দেশের মৃত সাংবাদিকদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আবদুল মজিদ আলোচনাসভায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন।

জেইউবির সভাপতি মনিরুল আলম স্বপনের সভাপতিত্বে ও ডেইলি স্টারের সাংবাদিক সুশান্ত ঘোষের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য দেন, বরিশাল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কালের কণ্ঠের ডেপুটি চিফ রিপোর্টার তৌফিক মারুফ।

এ ছাড়া মে দিবসের মূল্যবান বক্তব্য দেন সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) সভাপতি অধ্যাপক শাহ সাজেদা, বরিশাল রিপোর্টারর্স ইউনিটির সভাপতি নজরুল বিশ্বাস, প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার এম জসীম উদ্দীন, ডেইলি স্টারের পটুয়াখালী প্রতিনিধি সোহরাব হোসেন, জেইউবির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, বরগুনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস খান ইমন প্রমুখ।

প্রধান বক্তা হিসেবে বিএফইউজে-বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আবদুল মজিদ বলেন, নবম ওয়েজ বোর্ড আমাদের আন্দোলনের ফসল। সরকার ওয়েজ বোর্ড ঘোষণা করেছিল। কিন্তু মালিক পক্ষ আইনি প্রক্রিয়ায় তা আটকে রেখেছে। এর জন্য আমাদেরকে আন্দোলনে যেতে হবে। কিন্তু করোনাকালে এটা ঠিক হবে না। আমরা তথ্যমন্ত্রীর মাধ্যমে বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেছি। করোনার কথা ভেবে প্রধানমন্ত্রী সাংবাদিকদের ১০ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন।

আরও পড়ুন

মন্তব্য করুন

Back to top button